How to Keep Secure Your Facebook Account?

How to Keep Secure Your Facebook Account?

How to Keep Secure Your Facebook Account?
02 March, 2021

How to Keep Secure Your Facebook Account?

আমরা প্রত্যেকেই সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম গুলোর সাথে পরিচিত। এমনকি, আমাদের প্রায় সকলেরই কোন কোন সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে অ্যাকাউন্ট রয়েছে। ফেসবুক টুইটার ইনস্টাগ্রাম লিংকডইন পিন্তেরেস্ট হোয়াটসঅ্যাপ ইত্যাদি আজকাল আমাদের খুবই পছন্দের সোশল মিডিয়া।


আমাদের দৈনন্দিন জীবনের পাশাপাশি আমাদের সোশ্যাল মিডিয়া লাইফ টি ও খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের সকলের উচিত আমাদের সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্টগুলোর প্রতি খুবই সর্তকতা অবলম্বন করা।
















x

তাই আজকে আমরা দশটি টিপস সম্পর্কে জানব যেগুলো ফলো করলে আমরা আমাদের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টগুলো সুরক্ষিত এবং নিরাপদ রাখতে পারব।


How to keep secure your Facebook account?

আজকাল সোশ্যাল মিডিয়ার মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হচ্ছে ফেসবুক। তাই আজ আমরা ফেসবুক একাউন্ট কিভাবে সিকিউর রাখা যায় সে সম্পর্কে জানব।

1. Strong Password

শক্তিশালী পাসওয়ার্ড মানে হচ্ছে পাসওয়ার্ডের একটি কম্বিনেশন যা সহজে কেউ আন্দাজ করতে পারবে না। আমরা অনেক সময় খুব সহজ একটি পাসওয়ার্ড দিয়ে রাখি যেন আমরা পাসওয়ার্ডটি না ভুলে যাই।


কিন্তু সহজ পাসওয়ার্ড দেওয়ার ফলে আমাদের একাউন্টটি যেকোনো সময় হ্যা'ক হয়ে যেতে পারে। তাই আমাদের শক্তিশালী পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে হবে।


একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড এর বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, আপনি পাসওয়ার্ড টির মধ্যে নাম্বার, অ্যালফাবেট, এবং স্পেশাল সিম্বল যেমন @, #, &, ? ইত্যাদি ব্যবহার করতে হবে। পারলে বড় হাতের এবং ছোট হাতের বর্ণমালা মিলিয়ে একটি পাসওয়ার্ড তৈরি করতে হবে।


এতে করে আপনার পাসওয়ার্ডটি খুবই শক্তিশালী হয়ে উঠবে এবং সাধারণ অ্যাটাক করে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট কেউ হ্যা'ক করতে পারবে না।


Fact: ফেসবুকের নির্মাতা মার্ক জুকারবার্গ এর ফেসবুক একাউন্ট হ্যা'ক হয়েছিল সহজ পাসওয়ার্ড দেওয়ার কারণে।


2. Real Name and Data


আমাদের মধ্যে অনেকেই ফেসবুক কিংবা অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম গুলোতে ফেক নেম মানে ছদ্মনাম ব্যবহার করে থাকে।


কিন্তু আপনার অ্যাকাউন্ট সেফ রাখার জন্য আপনাকে অবশ্যই আপনার রিয়েল নাম ঠিকানা জন্ম তারিখ ইত্যাদি ব্যবহার করতে হবে।


কারণ, যদি কোন কারণে কখনো আপনার ফেইসবুক একাউন্টটি কম্প্রোমাইজ কিংবা হ্যা'ক হয়ে যায় তখন আপনি চাইলে আপনার ব্যক্তিগত আইডি দিয়ে ভেরিফাই করে আপনার ফেইসবুক একাউন্টটি পুনরায় আপনার কন্ট্রোলে আনতে পারবেন।


ফেসবুকে ভেরিফাই করার জন্য আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র, পাসপোর্ট, অথবা ড্রাইভিং লাইসেন্স এর স্ক্যান কপি প্রয়োজন হয়। তাই অবশ্যই আপনার সত্যি কারের নাম ঠিকানা জন্ম তারিখ সহ অন্যান্য তথ্য ব্যবহার করবেন।


Fact: ফেকনেম ব্যবহারকারী ফেসবুক একাউন্ট গুলো খুব তাড়াতাড়ি ডিজেবল হয়ে যায়।


3. Two-step Verification


Two-step verification বা Two-Factor Authentication হচ্ছে আপনি যখন আপনার সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে লগইন করতে যাবেন তখন আপনার সোশ্যাল মিডিয়া ওয়েবসাইট থেকে আপনার ই-মেইল বা ফোন নাম্বারে একটি OTP বা One Time Password এসএমএস করে পাঠানো হবে যা ব্যবহার করে আপনি আপনার একাউন্টে লগইন করতে পারবেন।


আপনার অ্যাকাউন্টটি অনেকটাই সিকিউর হয়ে ওঠে। কারণ কেউ যদি আপনার পাসওয়ার্ড জেনেও যায় তখন সে যখন লগইন করতে যাবে তখন আপনার মোবাইলে এসএমএস আসবে এবং ওটিপি কোড টি ও আপনার ফোনেই থাকবে। তাই সে চাইলেও আর লগইন করতে পারবেনা।


4. App Website Permission

ফেসবুক বা অন্যান্য কোন সোশ্যাল মিডিয়া দিয়ে আমরা যখন কোন অ্যাপ বা ওয়েবসাইটে লগ ইন করতে চাই অথবা কোন ফিচার ব্যবহার করতে যাই তখন আমাদেরকে ফেসবুক দিয়ে লগইন করতে বলা হয়।


যখন কোন অ্যাপে ফেসবুক দিয়ে লগইন করতে হয় তখন আপনার সঙ্গে একটা পপ আপ উইন্ডো ওপেন হয়। সেখানে এই অ্যাপটির পারমিশন গুলো উল্লেখ করা থাকে। তাই অবশ্যই দেখে নিবেন আপনি যেই অ্যাপ বা ওয়েব সাইটটি ব্যবহার করতে চাচ্ছেন সেগুলো আপনার একাউন্টের কোন কোন পারমিশন গুলো চাচ্ছে।


আপনি চাইলে পারমিশন গুলো এডিট অপশন থেকে বন্ধ করে দিতে পারবেন।

আর লগইন করার পূর্বে অবশ্যই খেয়াল করবেন যে অ্যাপটি ট্রাস্টেড কিনা।

কোন অ্যাপ এ লগইন করার পর কাজ শেষে আপনি আপনার ফেসবুক একাউন্ট সেটিং অপশন থেকে ওই অ্যাপসগুলো রিমুভ করে দিবেন।


5. Hide login information

লগ ইন ইনফর্মেশন বলতে এখানে বুঝানো হয়েছে যে আপনার মোবাইল নাম্বার, ইমেইল অ্যাড্রেস যেগুলো দিয়ে আপনার ফেসবুক কিংবা অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্ট খোলা রয়েছে, সেগুলো অবশ্যই ফেসবুকে পাবলিশ করবেন না।


ফেসবুকের সেটিংস অপশন থেকে আপনার ই-মেইল এবং ফোন নাম্বার হাইড করে রাখবেন। এর ফলে কেউ সহজেই আপনার লগইন ডিটেলস ব্যবহার করে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট কিংবা অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্ট হ্যা'ক করতে পারবে না।


6. Don't open unknown link

যে লিংকটা আপনি চেনেন না কিংবা যে লিঙ্কটা পাঠিয়েছে সেই ব্যক্তি কে যদি আপনি না চিনেন তাহলে আপনি ভুলেও ওই লিংকে ক্লিক করবেন না।


কারণ আপনি ফিশিং-এর শিকার হতে পারেন। এছাড়াও আরও বিভিন্ন অ্যাটাকিং মেথড রয়েছে যা সাধারণত লিংক শেয়ারিং এর মাধ্যমে হয়ে থাকে। তাই দয়া করে এ ধরনের লিঙ্ক ক্লিক করা থেকে বিরত থাকবেন।


Fact: অ্যাটাকাররা বেশিরভাগ শর্ট করা লিংক ব্যবহার করে থাকে।


7. Don't Login from unknown devices

Unknown কোন জায়গায় আপনার ফেসবুকে কিংবা সোশ্যাল মিডিয়ায় অ্যাকাউন্টগুলো লগ ইন করা যাবে না। Unknown বলতে এখানে বুঝানো হয়েছে যে সকল ডিভাইস আপনার নিজস্ব ডিভাইস নয়। যেমন সাইবার ক্যাফে, আপনার বন্ধুর পিসি, বন্ধুর ফোন ইত্যাদি।


যদি আপনি তাকে ট্রাস্ট না করেন তাহলে সেখানেও আপনি লগইন করবেন না। কারণ সেখানেও হয়তো স্পাইওয়্যার থাকতে পারে যা আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লগ-ইন ডিটেইলস মানে ইমেইল এবং পাসওয়ার্ড সেভ করে রাখতে পারে। তাই এ সকল জায়গায় লগইন করার সময় অবশ্যই সম্পূর্ণ সর্তকতা এবং বিশ্বস্থতা যাচাই করে তারপরেই লগইন করবেন। না হয় লগইন করার প্রয়োজন নেই।


8. Remove Previous Login

আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট সুরক্ষিত করার জন্য আপনাকে প্রিভিয়াসলি লগইন করা ডিভাইসগুলোর সেশন ক্লিয়ার করে দিতে হবে। ফেসবুক কিংবা অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া ওয়েবসাইটে আপনাদের লগইন করা ডিভাইসের লিস্ট পেয়ে যাবেন।


সেখান থেকে আপনি সহজেই সবগুলো ডিভাইস থেকে আপনার অ্যাকাউন্টটি লগ আউট করে নিতে পারেন। এতে করে আপনার একাউন্টে অনেকটাই সুরক্ষিত হয়ে উঠবে।


9. Don't mess with anyone

ফেসবুক কিংবা অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এ কারো সাথে ঝামেলায় যাওয়ার প্রয়োজন নেই। কেউ আপনার কিছুই করতে পারবেনা এটা ভেবে অন্যের সাথে ঝগরা কিংবা ঝামেলা করলে, সেই ব্যক্তিটি হতে পারে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টের জন্য খুবই বড় ক্ষতির কারণ। তাই ফেসবুক লাইক কে নরমালি নিবেন।


10. Hire a Pro Ha©ker

এই টিপসটা হচ্ছে শুধুমাত্র প্রফেশনাল মানুষদের জন্য। যদি আপনার কোনো ফেসবুক পেজ কিংবা বিজনেস অ্যাকাউন্ট থাকে তাহলে আপনাকে খুবই সর্তকতা অবলম্বন করতে হবে।


সে ক্ষেত্রে আপনি চাইলে আপনার ফেসবুক পেইজের দুর্বলতার যাচাই করতে একজন প্রফেশনাল হ্যা'কার কে ভাড়া করতে পারেন।


যে কিনা তার হ্যা'কিং অভিজ্ঞতা দ্বারা আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যা'ক করবে এবং কিভাবে হ্যা'ক হল সেটা আপনাকে খুলে বলবে। তারপর আপনার হয়ে সেই দুর্বলতা টিকে সলভ করে দিবে। যাতে করে ওই প্রতিবেদনে কেউ আপনার ফেসবুক একাউন্ট হ্যা'ক না করতে পারে।


Note: এই ছিল 10 টি উপায় যার মাধ্যমে আপনি আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায় অ্যাকাউন্টগুলো সুরক্ষিত রাখতে পারবেন। মনে রাখবেন, সোশ্যাল মিডিয়া লাইফ টি আপনার রিয়েল লাইফের একটি সিমুলেশন।


তাই আপনি রিয়েল লাইফের যেভাবে মানুষের সাথে ব্যবহার করেন ঠিক সেভাবেই সোশ্যাল মিডিয়াতে ব্যবহার করবেন। নিজে ভাল থাকবেন, সুরক্ষিত থাকবেন এবং অন্যদেরকেও সুরক্ষিত রাখবেন।